ঝিনাইদহে ২৫ টাকার ইনজেকশন৩’শ টাকায় বিক্রি

মাহফুজুর রহমান
ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল এলাকায় ২৫ টাকার ইফিডিন ইনজেকশন তিনশ টাকা থেকে পনের’শ টাকা বিক্রির দায়ে তিন ফার্মেসিকে পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। রোববার দুপুরে ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু সালেহ মোহাম্মদ হাসনাতের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালত এই জরিমানা আদায় করেন। এ সময় ঝিনাইদহ র‌্যাবের কোম্পানী কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম উপস্থিত ছিলেন। অভিযোগ রয়েছে ২৫ টাকার ইফিডিন ইনজেকশন হাসপাতাল গেটে অবস্থিত মাতৃছায়া, সিদ্দিক ও পান্না ফার্মেসির মালিকরা যোগসাজস করে তিনশ টাকা থেকে সর্বোচ্চ পনেরশ টাকা দামে বিক্রি করতো। এ কারণে মাতৃছায়া ও পান্না ফার্মেসিকে ২০ হাজার টাকা করে ৪০ হাজার টাকা ও সিদ্দিক ফার্মেসিকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এদিকে একই সময়ে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে ৫ দালালকে আটক করে তাদের বিভিন্ন মেয়াদে জেল জরিমানা করা হয়। দন্ডিত দালালরা হচ্ছে সদর উপজেলার আড়পাড়া গ্রামের জলিল মালিতার ছেলে সজল মালিতা (৩০), পুর্ব নারায়ণপুর গ্রামের তাসেম আলীর ছেলে জামিরুল ইসলাম (৩৫), দুর্গাপুর গ্রামের আইয়ুব হোসেনের ছেলে রানা (২৫), কালীগঞ্জ উপজেলার কোলা গ্রামের ভোলার ছেলে সুজন হোসেন (২৮) ও সদর উপজেলার ধোপাবিলা গ্রামের ছবেদ আলীর ছেলে সানাউল্লাহ (৪৫)। র‌্যাবের কোম্পানী কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম জানান, ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে সেবা নিতে আসা রোগিরা দালালদের খপ্পরে পড়ে প্রতারিত হচ্ছে এমন অভিযোগে দুপুরে র‌্যাবের একটি দল সেখানে অভিযান চালায়। এসময় এসময় ৫ জনকে আটক করা হয়। পরে আদালত বসিয়ে অভিযোগ স্বীকার করলে সজল, জামিরুল, রানা ও সুজন হোসেনকে ৫ দিন করে কারাদন্ড ও ২’শ টাকা করে জরিমানা এবং সানাউল্লাহকে ২’শ টাকা করে জরিমানা করা হয়। ভোক্তাদের অভিযোগ ঝিনাইদহ জেলার প্রায় সব ফার্মেসিগুলোতে ইফিডিন ও প্যাথেডিন ইনজেকশন বেশি দামে বিক্রি করে যাচ্ছে। এদের কেও ধরা পড়ছে আর বেশির ভাগ ধরাছোয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে।