সড়কপথে ঈদ যাত্রা নিরাপদ করতে ১২ সুপারিশ

সড়কপথে ঈদ যাত্রা নিরাপদ করতে ১২ দফা সুপারিশ করেছে নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটি। সংগঠনের সভাপতি হাজি মোহাম্মদ শহীদ মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক আশীষ কুমার দে গতকাল সোমবার এক বিবৃতিতে এ সুপারিশ উত্থাপন করে তা বাস্তবায়নের জন্য সরকারসহ সংশ্লিষ্ট সব কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

সুপারিশে বলা হয়েছে-দুর্ঘটনা রোধে রেজিস্ট্রেশন, ফিটনেস ও রুট পারমিটবিহীন সব ধরনের গাড়ি চলাচল বন্ধ করতে হবে; বাস টার্মিনাল ও কাউন্টারগুলোয় প্রয়োজনীয়সংখ্যক সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপনসহ সব টার্মিনাল ও মহাসড়কে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে; বাসের ছাদে, ট্রাক ও পিক-আপ ভ্যানে যাত্রী পরিবহন বন্ধে মহাসড়ক, আন্তজেলা সড়ক ও আঞ্চলিক সড়কে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করতে হবে; সারা দেশে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় সব জেলা ও পুলিশ প্রশাসনকে সম্পৃক্ত করতে হবে; অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও টিকিট কালোবাজারি বন্ধে আইনের যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে; দূরপাল্লার সড়কে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চলাচল ও বেআইনিভাবে ওভারটেকিং বন্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে; জাল লাইসেন্সধারী ও অপ্রাপ্তবয়স্কদের গাড়ি চালানো ও চলন্ত অবস্থায় চালকদের মোবাইল ফোন ব্যবহার বন্ধে জেলা ও পুলিশ প্রশাসনকে ক্ষমতা দিতে হবে; জাতীয় মহাসড়ক ও আন্তজেলা সড়কে অটোরিকশা, ইজিবাইকসহ তিন চাকার সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ করতে হবে;  শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি ও পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে নিরবচ্ছিন্ন ফেরি ও লঞ্চ চলাচল নিশ্চিত করতে হবে; ঈদের আগে শিমুলিয়া ও পাটুরিয়া এবং ঈদের পর কাঁঠালবাড়ি ও দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে সাত দিন করে ভ্রাম্যমাণ আদালতসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর জোর তৎপরতা চালাতে হবে; মহাসড়কের দুঃসহ যানজট রোধে সড়কসংলগ্ন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও ট্রাফিক আইনের কঠোর প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে।