পাইকগাছা সরকারী কলেজকে জড়িয়ে ও শিক্ষকের নামে ফেসবুকে আপত্তিকর পোস্টের অভিযোগ

পাইকগাছা ব্যুরো ॥
পাইকগাছায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সরকারী কলেজেকে জড়িয়ে ও ভূগোল বিষয়ের শিক্ষকের নামে অভিযোগের ঘটনায় থানায় সাধারন ডায়েরী হয়েছে। গত ১৮ মে বিকেলে “পাইকগাছা টপ নিউজ” নামক আইডিতে সরকারী এ কলেজে ভূগোল ব্যবহারিকে চলছে হরিলুট,বিনা রশীদে গলাকাটা ফি ও জরিমানা শিরোনামে প্রতিবেদনটি সম্পুর্ন মিথ্যা, ভিত্তীহীন ও বানোয়াট দাবী করে ভূগোল শিক্ষক মোমিন উদ্দীন প্রতিকার চেয়ে সোমবার থানায় সাধারন ডায়েরী করেছেন, যার নং- ৯২৮।
টপ নিউজ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে সদ্য সমাপ্ত এইচএসসি পরীক্ষায় পাইকগাছা সরকারী কলেজ থেকে প্রায় দেড় শতাধিক শিক্ষার্থী ভুগোল বিষয়ে অংশ গ্রহন করে। ব্যবহারিক পরীক্ষায় মোমিন উদ্দীন প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ৩-৪ শত করে টাকা নিচ্ছেন। টাকা না দিলে খাতায় সই করছেন না। এ ছাড়া কলেজে রীতিমত হরিলুট, রশীদ ছাড়া ইচ্ছেমত অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে হিসাব রক্ষকরা এমন অভিযোগ আনা হয়েছে। এ ঘটনায় দুদুকে অভিযোগ হয়েছে বলে দাবী করা হয়েছে। তবে বিশ্লেষকদের মতে অভিযোগে কোন শিক্ষার্থী বা তাদের অভিভাবকের নাম জানানো হয়নি এমনকি অধ্যক্ষ বা ভুগোল শিক্ষকের কোন মতামত নেওয়া হয়নি। তাঁরা এটাকে সম্পুর্ন হলুদ সাংবাদিকতা বলে মন্তব্য করেছেন। এ বিষয়ে শিক্ষক মোমিন উদ্দীন বলেন, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা গ্রহনের নামে প্রকাশিত নিউজ পুরোটাই মিথ্যা ও কাল্পনিক। কলেজ অধ্যক্ষ মিহির বরন মন্ডল বলেন, নিয়ম মেনে প্রতিষ্ঠান চলছে। একটি অশুভ চক্র কথিত অভিযোগ তুলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দীর্ঘদিনের সুনাম নষ্ট করার জন্য এ ধরনের অভিযোগ তুলেছেন বলে মন্তব্য করেছেন।