ইংলিশ দাপটে উইন্ডিজ অল-আউট

বিশ্বকাপের আগে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বেশ কয়েকটি ম্যাচ জিতে তাতিয়ে ছিল উইন্ডিজ। তবে বিশ্বকাপের মঞ্চে তা হারিয়ে গেল। যেন পাল্টা প্রতিশোধ নিল স্বাগতিক ইংল্যান্ড। ইংলিশ পেসারদের দাপটে ৪৪.৪ ওভারে মাত্র ২১২ রানে অল-আউট হয়ে গেছে জেসন হোল্ডারের দল। সর্বোচ্চ ৬৩ রান করেছেন নিকোলাস পুরান। দুই সুপারস্টার ক্রিস গেইল এবং আন্দ্রে রাসেল আজও ব্যর্থ। ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন মার্ক উড আর জোফরা আর্চার।

সাউদাম্পটনে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে বিপদেই পড়ে উইন্ডিজ। কন্ডিশনের পুরো সুবিধা আদায় করে নিচ্ছেন ইংলিশ পেসাররা। দলীয় ৪ রানে ফর্মহীনতায় ভূগতে থাকা এভিন লুইসকে (২) বোল্ড করে দেন ক্রিস ওকস। এই পেসারের বলে ব্যক্তিগত ১৬ রানে সহজ ক্যাচ দিয়ে বেঁচে যান ক্রিস গেইল। এই দানবের ব্যাট ছুঁয়ে বল মার্ক উডের তালুবন্দি হলেও ব্যালান্স হারিয়ে সেটা ফেলে দেন তিনি।

চলতি বিশ্বকাপে জ্বলে উঠতে পারছেন না ক্যারিবিয়ান দানব। আজ তার সঙ্গে ৫০ রানের দ্বিতীয় উইকেট জুটি বাঁধেন শাই হোপ। লিয়াম প্ল্যাংকেটের বলে জনি বেয়ারস্টোর তালুবন্দি হয়ে ফিরেন ৪১ বলে ৩৬ রান করা দ্য ইউনিভার্স বস। ১ রানের ব্যবধানেই মার্ক উডের বলে এলবিডাব্লিউ হয়ে যান ইনফর্ম শাই হোপ। তবে হোপকে ফেরাতে রিভিউ নিতে হয়েছে ইংলিশদের। এ পর্যায়ে ৮৯ রানের জুটি গড়ে বিপদ সামাল দেন নিকোলাস পুরান এবং শিমরন হেটমায়ার। জো রুটের বলে ৩৯ রান করা হেটমায়ার কট অ্যান্ড বোল্ড হলে ভাঙে এই জুটি।

এরপর একটি ধস নামে উইন্ডিজ ব্যাটিং লাইনআপে। ভয়ংকর আন্দ্রে রাসেল (২১) জ্বলে ওঠার আগেই থামিয়ে দেন মার্ক উড। অধিনায়ক জেসন হোল্ডারকেও (৯) কট অ্যান্ড বোল্ড করেন রুট। নিকোলাস পুরান ৭৮ বলে ৩৯ রান করে আর্চারের শিকার হন। আর্চারের দ্বিতীয় শিকার শেলডন কটরেল (০)। দলের হাল ধরার চেষ্টা করা ব্র্যাথওয়েটও (১৪) আর্চারের তৃতীয় শিকারে পরিণত হন। শেষ আনুষ্ঠানিকতাটুকু শ্যানন গ্যাব্রিয়েলকে (০) বোল্ড করে সম্পন্ন করেন ৩ উইকেট নেওয়া মার্ক উড। ৪৪.৪ ওভারে মাত্র ২১২ রানে অল-আউট হয়ে যায় উইন্ডিজ।